স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রালয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২১

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের একটি মন্ত্রণালয়। বাংলাদেশ সরকারের অন্যতম এ সংস্থাটি দেশের জনস্বাস্থ্য সুরক্ষায় ও পরিবার পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করে।সম্প্রতি স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রালয় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে।আগ্রহী ও যোগ্য ব্যক্তিদের আবেদন করার জন্য আহব্বান করা হচ্ছে।

১।পদের নামঃ স্টোর কিপার

পদের সংখ্যাঃ ২১ জন

শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ এইচএসসি পাশ

বেতনঃ ৮২৫০-২০,০১০।

২।পদের নামঃ অফিস সহায়ক

পদের সংখ্যাঃ ২১ জন

শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ কোনো স্বীকৃত বোর্ড থেকে উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট।

বেতনঃ ৮২৫০-২০,০১০।

৩।পদের নামঃ বাবুর্চি/সহকারী বাবুর্চি

পদের সংখ্যাঃ ২১ জন

শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ ৮ম শ্রেনী পাশ।

বেতনঃ ৮২৫০-২০,০১০।

৪।পদের নামঃ আয়া

পদের সংখ্যাঃ ১১ জন

শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট।

বেতনঃ ৮২৫০-২০,০১০।

৫।পদের নামঃ নিরাপত্তা প্রহরী

পদের সংখ্যাঃ ১৭ জন

শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট।

বেতনঃ ৮২৫০-২০,০১০।

৬।পদের নামঃ পরিচ্ছন্নতা কর্মী

পদের সংখ্যাঃ ১১ জন

শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট।

বেতনঃ ৮২৫০-২০,০১০।

সরকারি বেসরকারি সব ধরনের চাকরির খবর সবার আগে পাবেন এই ওয়েবসাইটে www.goodjobbd.com । তাই যেকোনো ধরনের চাকরির খবর পেতে ভিজিট করুন আমাদের ওয়েবসাইট।স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রালয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২০  সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্য দেখতে নিচের ছবিটি লক্ষ্য করুন -বিস্তারিত তথ্য দেখুন নিচের ছবিতে।

স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রালয়ে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

Eophaoi

Source: Amadershomoy, 30 November 2020

Application Deadline: 22 December 2020

Leamf1f

Application Deadline: 12 December 2020′

Apply Online: niport.teletalk.com.bd

Qeuwndm

আবেদন করতে ভিজিট করুনঃ dgfp.gov.bd

পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর

পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর হচ্ছে বাংলাদেশের ঢাকায় অবস্থিত একটি সরকারি সংস্থা যা পরিবার পরিকল্পনা বিষয়ে কাজ করে। জনসংখ্যার হার বৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণে সহায়তার লক্ষে এই অধিদপ্তরটি ইউনিয়ন পর্যায়ের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রসমূহ পরিচালনা করে থাকে

দৃষ্টি:

২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করার লক্ষ্যে জনগণের স্বাস্থ্য, সুখী ও অর্থনৈতিকভাবে উত্পাদনশীল হওয়া এই দৃষ্টিভঙ্গি।

মিশন:

মিশন হ’ল এমন পরিস্থিতি তৈরি করা যার মাধ্যমে বাংলাদেশের জনগণের স্বাস্থ্যের সর্বোচ্চ অর্জনযোগ্য পর্যায়ে পৌঁছানো এবং বজায় রাখার দক্ষতা রয়েছে।

লক্ষ্য:

লক্ষ্যটি হ’ল স্বাস্থ্য, জনসংখ্যা এবং পুষ্টি পরিষেবাগুলিতে অ্যাক্সেস এবং ব্যবহারের উন্নতি করে বাংলাদেশের সকল নাগরিকের জন্য মানসম্পন্ন ও ন্যায়সঙ্গত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করা। বাংলাদেশ জুড়ে বাস্তবায়িত অন্যান্য মূল খাতে বেশ কয়েকটি উন্নয়নমূলক কার্যক্রম এইচপিএনএসডিপি সহ এই লক্ষ্য অর্জনে অবদান রাখবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.